মঙ্গলবার, জুন 18, 2024
মঙ্গলবার, জুন 18, 2024

HomeFact Checkহিজাব পড়া মেয়েটি মহারাষ্ট্রের আইপিএস অফিসার নয়, ছবিটি ভুল দাবি নিয়ে শেয়ার...

হিজাব পড়া মেয়েটি মহারাষ্ট্রের আইপিএস অফিসার নয়, ছবিটি ভুল দাবি নিয়ে শেয়ার করা হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়াতে

Authors

With a penchant for reading, writing and asking questions, Paromita joined the fight to combat and spread awareness about fake news. Fact-checking is about research and asking questions, and that is what she loves to do.

ফেসবুকে একটি হিজাব পরিহিত কিশোরী মেয়ের ছবি ভাইরাল হয়েছে যেখানে তাকে মহারাষ্ট্রের পুলিশের অফিসে বসা এবং পাশে কয়েকজন পুলিশকে হাসি মুখে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যাচ্ছে। দাবি করা হয়েছে হিজাব পরিহিতা এই মেয়েটি উর্দু মাধ্যম থেকে পড়াশোনা করে আইপিএস অফিসার হয়েছেন। আর শরীয়ত আইন অনুযায়ী হিজাব পরেই তিনি তার দ্বায়িত্ব হাতে নিয়েছেন। কিছু ফেসবুকের পেজ থেকে এই ছবিটি শেয়ার করে লেখা হয়েছে –

নিচের ছবিতে যাকে দেখছেন হিজাব পরিহীতা তাকে কি ভাবছেন? কোন আমলা কিংবা সমপর্যায়ের কোন অফিসার? তাহলে ভুল হলো আপনার। আপনি তো দেখছি মহামূর্খ!!! আরে এই ভ্দ্র মহিলা হচ্ছেন একজন IPS অফিসার!! হ্যাঁ, উনি উর্দু মাধ্যম থেকে পড়াশোনা করে উর্দুতে পরীক্ষা দিয়েই তবে IPS অফিসার হয়েছেন। আর যেহেতু পুলিশের ড্রেস কোড শরিয়ত পরিপন্থী তাই তিনি সেটা অতি অবশ্যই পরেননি। শরিয়তের থেকে সংবিধান কি কখনও বড় হতে পারে? সুতরাং কিসের সংবিধান? শরিয়তী আইন চাই। হ্যাঁ, গর্বিত ঘটনাটি ঘটেছে উদ্ভট ঠাকরের মহারাষ্ট্রে?? মনে রাখবেন, ভারতে শরিয়তী আইন চালু হতে আর বিশেষ দেরি নেই। ওহে হিন্দু, সম্প্রীতির ট্যাবলেট খেয়ে ঘুমাও।বালা সাহেব ঠাকরের এই ক্ষমতালোভী অপদার্থ ছেলে উদ্ভট ঠাকরে সত্যিই হিন্দুদের কলঙ্ক!!

ছবিঃ ফেসবুক থেকে সংগৃহীত

https://www.facebook.com/photo.php?fbid=187959662772865&set=a.106691550899677&type=3&theater&ifg=1
https://www.facebook.com/photo.php?fbid=620196348864511&set=a.118894555661362&type=3&theater

Fact check / Verification

এই ছবিটি শেয়ার করার সাথে যে দাবি করা হয়েছে তা পুরো মিথ্যে না হলেও আংশিক মিথ্যে। ছবিটির রিভার্স ইএমজে সার্চ করার পর আমরা Times of IndiaMumbai Times মার্চ এর ইউটুবের লিংক আমরা পাই। মহারাষ্ট্রের বুলদানা জেলা পুলিশে মাত্র একদিনের জন্য জেলার পুলিশের সুপারিনটেনডেন্ট হয় এই মেয়েটি যার নাম সাহরিশ কান্বল। মালিকাপুর তহশিলের জেলা উর্দু পরিষদের ছাত্রী একটি জটিল কেসে পুলিশকে সহায়তা করে। এক মহিলা ও শিশুর উপর নৃশংসতার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়ে পুলিশের সাহায্য করে এবং তার লক্ষ্য হলো সমাজে প্রতিটি নারী সম্মানের সাথে মাথা উঁচু করে বাঁচতে পারে সেই বিষয়ে কাজ করা।

https://www.youtube.com/watch?v=IAMc1cmnprk&feature=emb_logo

Conclusion

সাহারিশের ছবি যে দাবি নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করা হচ্ছে তা অর্ধ সত্য। মেয়েটি কম আইপিএস অফিসার নয়, আন্তর্জাতিক নারী দিবসের দিনে মাত্র একদিনের জন্য জেলা পুলিশ সুপারিনটেনডেন্ট হয়েছিল মাত্র।

Result : Partly false

সন্দেহজনক কোনো খবর ও তথ্য সম্পর্কে আপনার প্রতিক্রিয়া জানাতে অথবা সত্যতা জানতে আমাদের লিখে পাঠান checkthis@newschecker.in অথবা whatsapp করুন- 9999499044 এই নম্বরে। এছাড়াও আমাদের সাথে Contact Us -র মাধ্যমে যোগাযোগ করতে পারেন ও ফর্ম ভরতে পারেন ।

Authors

With a penchant for reading, writing and asking questions, Paromita joined the fight to combat and spread awareness about fake news. Fact-checking is about research and asking questions, and that is what she loves to do.

Paromita Das
Paromita Das
With a penchant for reading, writing and asking questions, Paromita joined the fight to combat and spread awareness about fake news. Fact-checking is about research and asking questions, and that is what she loves to do.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular