মঙ্গলবার, জুন 25, 2024
মঙ্গলবার, জুন 25, 2024

HomeFact CheckFact Check: করমণ্ডল এক্সপ্রেস দুর্ঘটনাস্থলের পাশে অবস্থিত ইস্কন মন্দিরকে মসজিদ বলে চালানো...

Fact Check: করমণ্ডল এক্সপ্রেস দুর্ঘটনাস্থলের পাশে অবস্থিত ইস্কন মন্দিরকে মসজিদ বলে চালানো হলো সামাজিক মাধ্যমে 

Authors

An enthusiastic journalist, researcher and fact-checker, Shubham believes in maintaining the sanctity of facts and wants to create awareness about misinformation and its perils. Shubham has studied Mathematics at the Banaras Hindu University and holds a diploma in Hindi Journalism from the Indian Institute of Mass Communication. He has worked in The Print, UNI and Inshorts before joining Newschecker.

With a penchant for reading, writing and asking questions, Paromita joined the fight to combat and spread awareness about fake news. Fact-checking is about research and asking questions, and that is what she loves to do.

Claim: ওড়িশার বালাসোরে তিনটি ট্রেনের একসাথে একসাথে দুর্ঘটনা যেখানে ঘটেছে সেখানেই কিছু দূরে রয়েছে মসজিদ 
Fact: এই দাবিটি ভুল, যাকে মসজিদ বলে দাবি করা হচ্ছে আসলে সেটি ইস্কন মন্দির 

ওড়িশার বালাসোরে শতাব্দীর সবথেকে ভয়াবহ ট্রেন দুর্ঘটনা ঘটেছে যেখানে প্রায় ২৭৫জন মানুষের মৃত্যু হয়েছে। সিগন্যালের ভুল, ট্রেনের ট্রাকের গোলমালের কারণে হয়তো এই দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে রেল তদন্তকারী দল। খবরের চ্যানেলে, সোশ্যাল মিডিয়াতে সর্বত্র তিনটি ট্রেনের এদিক ওদিক ছড়িয়ে থাকার ছবি ভাইরাল হয়েছে। এর মধ্যেই দাবি করা হচ্ছে যেখানে এই তিনটি ট্রেনের কলিসন হয়েছে সেখান থেকে অনতি দূরে রয়েছে মসজিদ। 

ট্রেনে দুর্ঘটনার মধ্যে এই সাম্প্রদায়িক দাবি @Randomsena নামের টুইটার প্রোফাইল থেকে ভাইরাল হয়। যদিও পরে এই পোস্টটিকে সরিয়ে ফেলে হয়, কিন্তু ততক্ষনে প্রায় ৪০০০বার এই টুইটিকে শেয়ার করা হয়ে গিয়েছে। ট্রেনের দুর্ঘটনার ছবি পোস্ট করে যেটিকে মসজিদ বলে দাবি করা হয়েছে সেই দিকটিকে আলাদা করে দেখিয়ে লেখা হয়েছে ‘জানিয়ে রাখি গতকাল শুক্রবার ছিল’ 

আমরা একই দাবি সমেত আরো কিছু পোস্ট এখানে দিলাম –

Fact check / Verification 

ওড়িশার বালাসোরে তিনটি ট্রেনের একসাথে একসাথে দুর্ঘটনা যেখানে ঘটেছে সেখানেই কিছু দূরে রয়েছে মসজিদ এই দাবিতে যে ছবিটি ভাইরাল হয়েছে তার সত্যতা জানার জন্য আমরা রিভার্স ইমেজ করি। এই পর্যায়ে আমরা ReutersAssociated Press এর লিংক পাই যেখানে দুর্ঘটনা স্থলের পরিষ্কার ছবি রয়েছে। এখানে ভালো করে দেখে বোঝা যাবে যেটিকে মসজিদ বলা হচ্ছে তার মাথায় রয়েছে চূড়া, যা প্রধানত মন্দিরে দেখা যায়। 

আমরা PTI এর সাংবাদিক যিনি ওই দুর্ঘটনা স্থল থেকে রিপোর্টিং করছেন তার সাথে যোগাযোগ করি। সাংবাদিক সুফিয়ান জানিয়েছেন এটি আসলে ইস্কন মন্দির যেটি বালাসোরের বাহানাগা বাজরে অবস্থিত। 

এই সূত্র ধরে আমরা গুগল ম্যাপে খোজ শুরু করি। মানচিত্রেও আমরা রেল লাইনের পাশে অবস্থিত ইস্কন মন্দির দেখি। 

(L-R) Viral image and screengrab of ISKCON temple from Google Maps

আমরা বালাসোরের বাহানাগা চত্বরে থাকা লোকজনদের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করি। সঞ্জীব নামের এক ব্যক্তি আমাদের জানিয়েছেন ওনার দোকান বাহানাগা বাজারে রয়েছে এবং ৫০ মিটার দূরত্বে রয়েছে ইস্কন মন্দির। এই মন্দিরটি যেখানে ট্রেনের কলিসন হয়েছে সি স্থল থেকে প্রায় ১০০ মিটার দূরে। তিনি আরো জানিয়েছেন কয়েক মাস ধরে মন্দিরে সারাইয়ের কাজ চলছে। সঞ্জীব আমাদের মন্দিরের কিছু ছবিও পাঠিয়েছেন। 

Images of ISKCON temple shared by Sanjib with Newschecker

আমরা বালাসোরের ইস্কন মন্দির কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করি এবং ওনারাও জানিয়েছেন রেল লাইনের থেকে কিছু দূরত্বেই রয়েছে ইস্কন। 

সাংবাদিক Manogya Loiwa ও ইস্কন মন্দিরের ভিডিও শেয়ার করে বলেছেন এই মন্দিরকে ওয়েনকেই মসদিজ আখ্যা দিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছে। 

এই পর্যায়ে আমরা বালাসোর পুলিশের একটি টুইট পাই। ৪ঠা জুনের এই টুইটে বলা হয়েছে ‘আমাদের নজরে একটি বিষয় এসেছে যেখানে কিছু মানুষ ইচ্ছাকৃত ভাবে করমণ্ডল এক্সপ্রেসের সাথে বাকি দুটি ট্রেনের ধাক্কা খাওয়ার বিষয়টিকে সাম্প্রদায়িক রূপ দিতে চাইছে, যেটি সম্পূর্ণ অকল্পনীয়। আমরা অনুরোধ করছি এই ধরণের বিভ্রান্তি ছড়াবেন না। যারা জেনেবুঝে এই ধরণের কাজ করছেন তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে’ .

Conclusion 

আমাদের অনুসন্ধানে প্রাপ্ত তথ্যের উপর নির্ভর করে বলা যেতে পারে সোশ্যাল মিডিয়াতে ওড়িশার বালাসোরে তিনটি ট্রেনের একসাথে একসাথে দুর্ঘটনা যেখানে ঘটেছে সেখানেই কিছু দূরে রয়েছে মসজিদ এই দাবিটি ভুল। ইস্কন মন্দিরের অর্ধেক ছবিক করমণ্ডল এক্সপ্রেস দুর্ঘটনার আবহে সাম্প্রদায়িক দাবি সমেত ছড়িয়েছে। 

Result: False 

Authors

An enthusiastic journalist, researcher and fact-checker, Shubham believes in maintaining the sanctity of facts and wants to create awareness about misinformation and its perils. Shubham has studied Mathematics at the Banaras Hindu University and holds a diploma in Hindi Journalism from the Indian Institute of Mass Communication. He has worked in The Print, UNI and Inshorts before joining Newschecker.

With a penchant for reading, writing and asking questions, Paromita joined the fight to combat and spread awareness about fake news. Fact-checking is about research and asking questions, and that is what she loves to do.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular